মঙ্গলবার, জুন ২৭, ২০১৭
হোম > অধিকার লঙ্ঘন > কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার ২০ বছর বিচারের প্রহর গুনছে স্বজনরা

কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার ২০ বছর বিচারের প্রহর গুনছে স্বজনরা

কল্পনা চাকমা পাহাড়ের সংগ্রামী নারী নেত্রী ও তরুণ মানবাধিকার কর্মী। ২৩ বছর বয়সী কল্পনা চাকমা ছিলেন চট্টগ্রাম হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক। ১৯৯৬ সালের ১২ জুন রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ির নিউ লাইলাঘোনা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে দুই বড় ভাইসহ অপহৃত হন তিনি। পরে ভাইয়েরা পালাতে সক্ষম হলেও কল্পনা চাকমা অপহরণকারীদের কব্জা থেকে নিজেকে মুক্ত করতে পারেননি। অপহরণের ২০ বছর পেরিয়ে গেছে, কিন্তু কল্পনা চাকমা আজও বেঁচে আছেন না মৃত্যুবরণ করেছেন সেসম্পর্কে কিছু জানতে পারেননি পরিবারের সদস্যরা।

কল্পনা চাকমা অপহরণের পরদিন ১৩ জুন বাঘাইছড়ি থানায় অপহরণ মামলা করেন তার বড় ভাই কালিন্দী কুমার চাকমা। মামলা দায়েরের এত বছর হলেও ২০১০ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত সময়কালে মামলার তদন্তে তিনবার চুড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করা হয়েছে। প্রতিবারেই এ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে নারাজি পিটিশন দিয়ে যাচ্ছে বাদী পক্ষ। ফলে আদালত আবারো ২০১৬ সালে চুড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে নারাজি আবেদনের বিষয়ে শুনানীর জন্য চলতি বছরের ২২ মার্চ তারিখ নির্ধারন করেছেন। এসকল তদন্ত ছাড়াও এর আগে আরও তদন্ত কমিশন গঠন করা হয়েছিলো। কিন্তু তাদের প্রতিবেদন আর প্রকাশ পায়নি।

কল্পনা চাকমার অপহরণের বিচার নিশ্চিত করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক, হিল উইমেন্স ফেডারেশন, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, কাপায়েং ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠন। কল্পনার পরিবার এখনো বিচারপ্রাপ্তির প্রত্যাশায় প্রহর গুনছে। তাদের দুঃখ ঘুচবে কবে?

উদিসা ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *