সোমবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৭
হোম > বিষয়ভিত্তিক সংবাদ > নারীর প্রতি অসমতা ও সহিংসতা এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পথে অন্তরায়

নারীর প্রতি অসমতা ও সহিংসতা এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পথে অন্তরায়

গত ১৮ই এপ্রিল এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্ম, বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের যৌথ উদ্যোগে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে “বৈশ্বিক উন্নয়ন এজেন্ডা ও নারীর অধিকার: নতুন বিবেচনা” শীর্ষক একটি সংলাপের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি।

স্থায়িত্বশীল উন্নয়ন এজেন্ডা (এসডিজির ৫নং লক্ষ্য) জেন্ডার সমতা এবং নারী ও কন্যা সন্তানের ক্ষমতায়ন কার্যক্রম প্রকৃতপক্ষে সকল লক্ষ্যসমূহ ও তার সামগ্রিক অভিষ্ট অর্জনে দৃঢ় ভারসাম্য প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা পালন করবে। মূল প্রবন্ধে বলা হয়, বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নের পথে অর্জনের সাথে সাথে তাদেরকে নানা ধরনের চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়েছে। তাই মুদ্রার একপিঠে রয়েছে শিক্ষাক্ষেত্রে, শ্রমবাজারে, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে অবদানসহ সর্বোপরি জাতীয় আয়ের ক্ষেত্রে নারীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা, অপরপিঠে রয়েছে কর্মক্ষেত্রে নারী হিসেবে বৈষম্য; যৌন নির্যাতন; পারিবারিক নির্যাতন; বাল্যবিবাহ; গণপরিবহন, পরিবার ও জনজীবনের সকল ক্ষেত্রে সহিংসতা ও প্রচলিত পারিবারিক আইনে অসমতা ইত্যাদি। নারীদের অবস্থার উন্নয়নে এ প্রবন্ধে ১১টি নতুন বিবেচনার কথা উল্লেখ করা হয়, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো :
 নারী শুধুমাত্র বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের টুল হিসেবে ব্যবহৃত হবে না, মানুষ হিসেবে নারীর নিজের রুপান্তর ঘটবে।
 গৃহস্থালী কাজের দায়ভার হ্রাসে পুরুষেরও অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে সহায়ক ব্যবস্থা গড়ে তোলা এবং ডে-কেয়ার, যাতায়াত, আবাসন ও নিরাপত্তাসহ কর্মক্ষেত্রে সর্বোপরি নারীবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করা।
 পারিবারিক আইন সংস্কার করে ধর্ম, বর্ণ, গোত্র নির্বিশেষে নারী-পুরুষ সকলের জন্য অভিন্ন পারিবারিক আইন প্রণয়ন করা, সম্পদ-সম্পত্তিতে নারী-পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করার আইনি ব্যবস্থা নেয়া।
 নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা [ব্যক্তি ও জনজীবনে[ নারীর ব্যক্তি ইস্যু নয়, তা সামাজিক ইস্যু যা দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্থ করে। এই বিবেচনায় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও নির্মূলে কর্মসূচি নেয়া।
 সমতার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ ও গৃহীত সকল পদক্ষেপের কার্যকর পরিবীক্ষণ পদ্ধতি গড়ে তোলা ইত্যাদি।

ড. শামসুল আলম বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি বাস্তবায়নে সরকার কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে এবং এর বিভিন্ন ভাগে নারীর ক্ষমতায়নের বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।
মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, সরকার ইতোমধ্যে নারীর ক্ষমতায়ন ও তাদের অধিকার রক্ষায় নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তবে সরকারের একার পক্ষে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়, তাই তিনি সকল স্টেকহোল্ডারদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *